রাজনীতি

আ.লীগের ঘাঁটিতে বিএনপির প্রার্থী একাধিক

আ.লীগের ঘাঁটিতে বিএনপির প্রার্থী একাধিক

গোপালগঞ্জ-২ আসনটি গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলা ও কাশিয়ানী উপজেলা নিয়ে গঠিত। এটি আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত। গোপালগঞ্জ-২ জাতীয় সংসদ আসনে স্বাধীনতার পর থেকেই আওয়ামী লীগ থেকে এমপি নির্বাচিত হয়ে আসছে। এই আসনে বিএনপি ও অন্যান্য দল গুলোর সাংগনিক কার্যক্রম নেই বললেই চলে।
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনেকটা নিশ্চিভাবই আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাবেন এ আসনের বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

অনেক বছর ধরে জাতীয় সংসদে এ আসনের প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। এলাকায় তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। স্খানীয় নেতাকর্মীরাও তার প্রতি আস্থাশীল। আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা চালাচ্ছেন নেতাকর্মীরা।
স্বাধীনতা পরবর্তী গোপাল গঞ্জ জেলা ছিল অবহেলিত ও উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। ৯৬ এর নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এলে গোপালগঞ্জে উন্নয়নের হাওয়া লাগলেও ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসার পর পরিস্থিতি আবারও বদলে যায়। গোপালগঞ্জে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা থেমে যায়। এসব কারণে গোপালগঞ্জের মানুষ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তা ছাড়া এ আসনে বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থাও একেবারে ভঙ্গুর। সাংগঠনিক তৎপরতা নেই বললেই চলে।

তারপরও জেলা বিএনপির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, সাবেক তিন সভাপতি এফই শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর, এমএইচ খান মঞ্জু, সাইফুর রহমান নান্টু, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এম মুনসুর আলী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান পিনু এ আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন বলে জানা গেছে।
সিরাজুল ইসলাম সিরাজ বলেছেন, আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হলেও এ জেলার প্রতিটি ওয়ার্ড পর্যায়ে বিএনপির কমিটি রয়েছে। তার নেতৃত্বে এ আসনে বিএনপি ভালো অবস্থানে রয়েছে। তিনি দলকে সুসংগঠিত করেছেন। তাই তিনি দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন।

এফই শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর জানিয়েছেন, ১৯৯১ সালে তিনি গোপালগঞ্জ-২ আসনে নির্বাচন করেছিলেন। ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে (আওয়ামী লীগ ওই নির্বাচন বয়কট করেছিল) গোপালগঞ্জ-১ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবার তিনি দুই আসনেই দলের মনোনয়ন চাইবেন। বিএনপির সম্ভাব্য আরও দুই প্রার্থী এম মনসুর আলী এবং মনিরুজ্জামান পিনু অভিন্ন ভাষায় বলেছেন, তারা আগামী নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন চাইবেন।
আওয়ামী লীগ ও বিএনপি এই দুই দলের বাইরে থেকে এবার জাতীয় কৃষক পার্টির সভাপতি সাহিদুর রহমান টেপা ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আলমগীর হোসেন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটির মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close